Close

World Chess Championship 2023: দুরন্ত প্রত্যাঘাতে বিশ্বখেতাবী লড়াইয়ে সমতা ফেরালেন ডিং লিরেন

ডিং লিরেন বনাম ইয়ান নেপোমনিয়াশি, বদলা নিলেন চিনের ডিং লিরেন, সমতা ফিরল বিশ্বখেতাবী লড়াইয়ে, আপাতত ২-২। এখনও বাকি ১০টি খেলা।

Photographer- Stev Bonhage Source- FIDE

নেপোমনিয়াশি এই মুহূর্তে বিশ্বের দু’নম্বর দাবাড়ু। তাঁর বর্তমান এলো রেটিং ২৭৯৫। গত বিশ্বখেতাবী লড়াইতে শোচনীয় পরাজয়ের পরেও যেভাবে নিজেকে পুনর্প্রস্তুত ক’রে সেরার সেরাদের হারিয়ে ক্যান্ডিডেটস জিতেছেন, তা অভিনন্দনযোগ্য। চলমান বিশ্বখেতাবী লড়াইয়ের প্রথম তিন রাউন্ডে তাঁর কোনও বড় ভুল হয়নি। দ্বিতীয় রাউন্ডে কালো ঘুঁটিতে দুর্দান্ত খেলে জয় হাসিল করেছেন। তৃতীয় রাউন্ডে ডিং লিরেন চেষ্টা করেছিলেন জেতার তথা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় সমতা ফেরানোর। ডিং এখন বিশ্বের তিন নম্বর, এলো রেটিং ২৭৮৮। ডিং দাবামহলে পরিচিত অভাবনীয় উদ্ভাবনী পরিকল্পনার জন্য। কিন্তু, হিমশীতল মস্তিষ্কে প্রত্যাক্রমণের নীতিতে ডিংয়ের মরিয়া প্রচেষ্টা রুখে দিয়েছিলেন ইয়ান। মাত্র তিন ঘণ্টা চলেছিল ম্যাচ। কুইন্স গ্যাম্বিট প্রত্যাখ্যান শাখায় জবরদস্ত প্রতিরক্ষাব্যবস্থা। তত্ত্ব বলছে- সাদা ও কালো যদি যথাযথ যুক্তির প্রয়োগ করতে পারে, তাহলে ম্যাচ গড়াতে থাকে অনিবার্য ড্রয়ের দিকে। বাস্তবে হয়েছেও তাই। আপাতদৃষ্টিতে একটি ঢিমেতাল গেম। সাদা এবং কালো পরস্পরের নীতি বুঝে ও মেপে খেলছে। পরস্পরের কৌশলগুলি আটকে দিচ্ছে। পরস্পরের প্রতিরক্ষা ব্যূহের সামনে খুব বেশি ঝুঁকি নিচ্ছে না। কিন্তু, ড্যানিল ডুবভ সুন্দর একটি ব্যাখ্যা দিয়েছেন, “হ্যাঁ, খুব একটা উত্তেজনা বা ঝুঁকির অবকাশ নেই এই গেমে। কিন্তু, কী গভীর যুক্তি-প্রতিযুক্তি রয়েছে প্রতিটি দানের পেছনে।” দাবায় সব গেম যে মারকাটারি নীতিতে এগোবে তা নয়। বরং প্রতিটি শান্ত, স্থিতধী দানের পরম্পরায় নিবিড় জীবনের ছাপ ধরা পড়ে। ডিংয়ের ছটফটে হাসিমুখ থেকে উদ্বেগ, নেপোমনিয়াশির ঈষৎ কঠিন মুখাবয়ব থেকে স্বস্তি। তৃতীয় গেমে সন্ধি।


World Chess Championship 2023: ইয়ান নেপোমনিয়াশি বনাম ডিং লিরেন
1.d4 Nf6 2.c4 e6 3.Nc3 d5 4.cxd5 exd5 5.Bg5 c6 6.e3 h6 7.Bh4 Be7 8.Bd3 O-O 9.Qc2 Re8 10.Nge2 Nbd7 11.O-O a5 12.a3 Nh5 13.Bxe7 Qxe7 14.Rae1 Nf8 15.Nc1 Nf6 16.f3 Ne6 17.N1e2 c5 18.Bb5 Rd8 19.dxc5 Qxc5 20.Qd2 Bd7 21.Bxd7 Nxd7 22.Nd4 Nb6 23.Rd1 Nc4 24.Qf2 Rac8 25.Na4 Qe7 26.Rfe1 Qf6 27.Nb5 Nc7 28.Nd4 Ne6 29.Nb5 Nc7 30.Nd4 Ne6 1/2-1/2


ডিং ম্যাচের পরে সাংবাদিক সম্মেলনে বলেছিলেন যে, নেপোর দুর্গ ভাঙার চেষ্টা করেছেন, আক্রমণের ঝাঁঝ বাড়াতে চেয়েছেন। কিন্তু, সঠিক ব্রেক-থ্রু খুঁজে পাননি। তবে, আত্মবিশ্বাস ফিরে পেয়েছিলেন। খেলাতে তার ছাপ পড়েছে।


২০২২ সালের ক্যান্ডিডেটস প্রতিযোগিতার প্রথম রাউন্ডে ডিং হেরেছিলেন নেপোমনিয়াশির কাছে। পরের ৭টা গেম ড্র করেছিলেন অন্যান্য প্রতিদ্বন্দ্বীদের বিরুদ্ধে। দ্বাদশ রাউন্ডে হারলেন তেইমুর রাদিয়াবভের বিরুদ্ধে। কিন্তু, একাদশ ও চতুর্দশ রাউন্ডে দু’টি গুরুত্বপূর্ণ জয় ছিনিয়ে নিয়েছিলেন ফ্যাবিয়ানো কারুয়ানা এবং হিকারু নাকামুরার বিরুদ্ধে। প্রতিযোগিতার প্রথম প্রহরে যে ডিংকে নিয়ে আশা করেননি বিশেষজ্ঞরা, শেষ প্রহরে সেই ডিং দ্বিতীয় স্থান অধিকার ক’রে নিলেন। ডিং জানেন, কীভাবে খেলায় ফিরে আসতে হয়।ডিং জানেন প্রত্যাঘাতের কৌশলগুলি খুঁজে নিতে নিতে জয়সূচক নীতি ছকে ফেলতে হয় কীভাবে।


বিশ্বখেতাবী লড়াইয়ের শুরুতেই তথা দ্বিতীয় রাউন্ডে হেরে গেলে মনস্তাত্ত্বিক চাপ বাড়ে। দ্রুত সমতা ফেরানোর ভার চেপে বসে মগজে। তখন শান্ত হয়ে যেতে হয় আরও। ভাস্কর চক্রবর্তী কবিতায় যেমন শান্ত হয়ে যাওয়ার আকাঙ্খা করতেন। কবিতাকে যেমন শান্ত কিন্তু গভীর ক’রে তুলতেন। ডিং তেমনই শান্ত। প্রস্তুতি নিয়েছিলেন। যাবতীয় উদ্বেগ ঢেকে ফেলেছিলেন। মুখাবয়বে কি জেদও ছিল না? প্রত্যাঘাত। যেকোনও ক্রীড়াক্ষেত্রে প্রত্যাঘাত সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ শব্দ। হেরে যাওয়ার বেদনাকে বদলা নেওয়ার মানসিকতায় বদলে নিয়ে ইস্পাতকঠিন হয়ে ওঠা। বিষাদকে বদলে নেওয়া পরিশীলিত ক্রোধে। বিপক্ষের দেওয়া পিন, ফর্কের ঝড়ঝাপটা সামলে ব্যূহভেদী পরিকল্পনা করা। ডিং এসবই পেরেছেন। তৃতীয় রাউন্ডের পরে ধন্যবাদ জানিয়েছিলেন ঘনিষ্ঠ বন্ধুদের, মানসিক চাপ কাটাতে পাশে থেকে উৎসাহ দিয়েছেন তাঁরা। ক্রমশঃ ডিংয়ের শরীরী ভাষা ও বহিঃপ্রকাশে আত্মবিশ্বাস ফিরেছে- প্রবীণ থিপসের এমনটাই পর্যবেক্ষণ।

ইংলিশ ওপেনিং। নাইট চতুষ্টয় শাখা। ওপেনিং-এর দানপর্যায় যখন পেরোলেন দু’জনে, তখন গেম সমান-সমান। কিন্তু, ডিং সুচারু ভঙ্গিতে ধীরে ধীরে মাঝছকের দখল নিচ্ছিলেন। e4, d4, c4 তিনটি পন জুটি বেঁধে উঠে আসছিল। ‘ম্যাকবেথ’ নাটকে বার্নাম অরণ্য যেমন উঠে এসেছিল ম্যাকবেথের প্রাসাদের দিকে! ২৪ নম্বর দানের পরে সাদার অপ্রতিরোধ্য পন কাঠামো অনেকটাই অগ্রসর হল। c4-d5-e6 পনকাঠামো কালোর পজিশনে চাপ বাড়ানোর জন্য যথেষ্ট। নেপোমনিয়াশির একাগ্রতা কি নড়ে যাচ্ছিল বারবার? তাই নির্দিষ্ট পরিকল্পনা হাতড়াচ্ছিলেন? কালোর নাইট দীর্ঘ ভ্রমণ সেরে স্বস্তিক্ষেত্র খোঁজার জন্য ছটফট করছিল। সাদার পিসগুলো ততক্ষণে সক্রিয় হয়ে উঠেছে। ব্যূহনির্মাণ সম্পূর্ণ করলেন ডিং। পছন্দসই পজিশন না পাওয়ায় ক্রমে ইয়ান অধৈর্য হয়ে উঠলেন। বিশ্বনাথন আনন্দের ব্যাখ্যায়, স্নায়ু নিয়ন্ত্রণে রাখতে পারেননি বলেই ভুল ক’রে বসলেন ইয়ান। ২৮ নম্বর দানে নেপোমনিয়াশি খেললেন Nd4 দান।


দ্বিতীয় রাউন্ডে নেপোমনিয়াশি যে দুর্দান্ত দান দিয়ে নিজের পজিশনে আক্রমণাত্মক বিবর্তন ঘটিয়েছিলেন, সেটা মনে আছে? নিজের রুক বলিদান দিয়ে মাঝছক পুরোই দখল ক’রে ফেলেছিলেন। ডিং লিরেন শুধু বদলা নিলেন না, বরং নেপোর বলিদান-কৌশলের পাল্টাপ্রস্তাব ফিরিয়ে দিলেন! ডিং নিজের রুক বলিদান দিয়ে আক্রমণের বন্ধ দরজা খুলে ফেললেন। Rxd4! সাদা নিজের বেশিদামি রুকের সঙ্গে কালোর কমদামি নাইটটিকে খাওয়াখাওয়ি করার পরে সাদার নাইট বিপুল পরাক্রমী হয়ে উঠবে। ওই যে সাদার তিনটে পন বার্নাম অরণ্যের মতো উঠে এসেছিল- ওই যে তিনটি পন কালোর পজিশনের জন্য শ্বাসরোধকারী হয়ে উঠেছে- ওদের যোগ্য সঙ্গত করবে এই নাইটটি। দুরন্ত আরবি ঘোড়া হয়ে উঠে ছুটে বেড়াবে, দখল নেবে বোর্ডের গুরুত্বপূর্ণ স্কোয়ারগুলির। Nd4 হয়ে Nf5 স্কোয়ারে বসে গেলেই নাইটটি শক্তিশালী আউটপোস্টের দখল নেবে। তারপর জয় কিছু সময়ের অপেক্ষা মাত্র।


World Chess Championship 2023: ডিং লিরেন বনাম ইয়ান নেপোমনিয়াশি
1.c4 Nf6 2.Nc3 e5 3.Nf3 Nc6 4.e3 Bb4 5.Qc2 Bxc3 6.bxc3 d6 7.e4 O-O 8.Be2 Nh5 9.d4 Nf4 10.Bxf4 exf4 11.O-O Qf6 12.Rfe1 Re8 13.Bd3 Bg4 14.Nd2 Na5 15.c5 dxc5 16.e5 Qh6 17.d5 Rad8 18.c4 b6 19.h3 Bh5 20.Be4 Re7 21.Qc3 Rde8 22.Bf3 Nb7 23.Re2 f6 24.e6 Nd6 25.Rae1 Nf5 26.Bxh5 Qxh5 27.Re4 Qh6 28.Qf3 Nd4 29.Rxd4 cxd4 30.Nb3 g5 31.Nxd4 Qg6 32.g4 fxg3 33.fxg3 h5 34.Nf5 Rh7 35.Qe4 Kh8 36.e7 Qf7 37.d6 cxd6 38.Nxd6 Qg8 39.Nxe8 Qxe8 40.Qe6 Kg7 41.Rf1 Rh6 42.Rd1 f5 43.Qe5+ Kf7 44.Qxf5+ Rf6 45.Qh7+ Ke6 46.Qg7 Rg6 47.Qf8 1-0


ডিংয়ের খেতাবী-লড়াই প্রস্তুতির ‘সেকেন্ড’ রিচার্ড র‍্যাপো ২০১৩ সালে গ্র্যান্ডমাস্টার জারাগাৎস্কির বিরুদ্ধে প্রায় একই দানপর্যায় খেলে জিতেছিলেন (প্রথম ১০টি দানে অবিকল দানপর্যায়)। ডিংয়ের প্রস্তুতিতে রিচার্ডের অভিজ্ঞতা নিশ্চয়ই ফলপ্রসূ হয়েছে। আনন্দ, অনিশ গিরি, জুডিথ পোলগারের মতো বহু যুদ্ধের পোড়খাওয়া দাবাবিদ নেপোম্নিয়াশির দেওয়া Nf6 (ন নম্বর দান) দানে প্রথম বিপদসংকেত পেয়েছিলেন। আরও ভাল দান না দিয়ে Nf6 দিয়েছেন মানে ইয়ান পূর্বপ্রস্তুতি গুলিয়ে ফেলেছেন। আর একটি ছোট্ট পর্যবেক্ষণ রাখি- সকল বিশেষজ্ঞ ও দর্শক ডিংয়ের এক্সচেঞ্জ স্যাক্রিফাইস (নাইটের বদলে রুক খেতে দেওয়া) নিয়ে মাতামাতি করছেন। অথচ আরও মারাত্মক অবস্থানগত বলিদান (positional sacrifice) ডিং করছেন ১৫ নম্বর দানে c5 খেলে। পন বলিদান দিলেন ডিং। সাদা এরপরে মাঝছক ও খেলার রাশ নিজের কুক্ষিগত ক’রে ফেলছে। দাবা-শিক্ষার্থীদের কাছে এমন দানের অনুশীলন অনুসরণযোগ্য। আর, শিক্ষণীয় মাঝছকের ফাইলে (Centre file) দ্বৈত রুক সাজিয়ে প্রতিপক্ষকে চাপে রাখার পরিকল্পনা।

দাবা ম্যাজিকের সেই নীতির মতো। হারিয়ে যাওয়া এমন কিছু ব্যাপার না। ফিরে আসাটাই আসল কেরামতি। হেরে যেতেই পারে কেউ। ফের জেতার রাস্তায় ফেরাটাই প্রকৃত খেলা। সকলে নিখুঁতভাবে ফিরিয়ে আনতে পারে না। ফিরে আসতে পারে না। দক্ষ জাদুকর সেই কৌশল জানেন। ডিং দেখালেন সেই ম্যাজিক। আপাতত ২-২। এখনও বাকি ১০টি খেলা। আস্তানায় যুদ্ধ অব্যাহত থাকল।

লেখক

  • প্রবুদ্ধ ঘোষ

    প্রবুদ্ধ ঘোষ, জাতীয় স্তরের দাবাড়ু ছিলেন, বর্তমানে বেঙ্গল চেস অ্যাসোশিয়েশনের আধিকারিক, যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের তুলনামূলক সাহিত্য বিভাগের গবেষক, কবি, সাহিত্যিক, প্রাবন্ধিক।

    View all posts

প্রবুদ্ধ ঘোষ, জাতীয় স্তরের দাবাড়ু ছিলেন, বর্তমানে বেঙ্গল চেস অ্যাসোশিয়েশনের আধিকারিক, যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের তুলনামূলক সাহিত্য বিভাগের গবেষক, কবি, সাহিত্যিক, প্রাবন্ধিক।

Leave a comment
scroll to top