Close

শ্রীলংকার ঋণের পুনর্বিন্যাসে যৌথমঞ্চে জাপান, ফ্রান্স ও ভারত, চীনকে আহ্বান

শ্রীলংকার ঋণের পুনর্বিন্যাসের উদ্দেশ্যে জাপান, ফ্রান্স ও ভারত ঋণদাতা দেশগুলিকে নিয়ে একটা যৌথ মঞ্চ তৈরির সীদ্ধান্ত নিয়েছে।

শ্রীলংকার ঋণের পুনর্বিন্যাসের উদ্দেশ্যে জাপান, ফ্রান্স ও ভারত ঋণদাতা দেশগুলিকে নিয়ে একটা যৌথ মঞ্চ তৈরির সীদ্ধান্ত নিয়েছে। বুধবার, ১২ই এপ্রিল, জাপানের অর্থমন্ত্রী শুনিচি সুজুকি বেঙ্গালুরুতে এক সাংবাদিক সম্মেলনে জানান। তিনি আরো বলেন ‘দারুন’ হবে যদি চীন এই উদ্যাগে সামিল হয়।

চলতি বছরের G7 সম্মেলনের আয়োজক হিসেবে জাপান, শ্রীলঙ্কার মতো দেশগুলিকে আলোচনায় বিশেষ গুরুত্ব দিচ্ছে। জাপান, ফ্রান্স এবং এবারের G20 সম্মেলনের আয়োজক ভারত যৌথ ভাবে এই মঞ্চের ঘোষনা করবে আজ বৃহস্পতিবার। এই মঞ্চ থেকে মূলত ঋনদাতা দেশগুলির মধ্যে একগুচ্ছ বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে।

“এর কাঠামো নির্মাণে আমরা সকলেই অনবদ্য উদ্যোগ নিয়েছি” সুজুকি বলেন, “আমি আশা করি, অনেক দেশ আমাদের সঙ্গে যুক্ত হবেন। দারুণ হবে যদি চীন যোগ দেয়।”

প্রসঙ্গত শ্রীলঙ্কা দীর্ঘ আট দশক ধরে অর্থনৈতিক সংকট এবং ঋণের বোঝা বয়ে আসছে, যা তাদের তেল এবং ওষুধের মত জরুরি পণ্যের আমদানিকে ব্যহত করেছে এবং বিভিন্ন সনয়ে রাজনৈতিক টালমাটালের জন্ম দিয়েছে। সম্প্রতি, আন্তর্জাতীক মুদ্রা তহবিল থেকে ২৯ বিলিয়ন মার্কিন ডলার অর্থ নিয়েছে শ্রীলঙ্কা।

ওদিকে ঋণদাতাদের অন্যতম চীন কলম্বোর সাথে সৌহার্দ্যপূর্ণ উপায়ে মাঝারি কিংবা দীর্ঘমেয়াদী ঋণ দিয়ে শ্রীলঙ্কাকে সংকট মুক্তিতে সহায়তা করবে বলে চীনের বিদেশমন্ত্রকের মুখপাত্র ওয়াং ওয়েনবিন জানান। “বেজিং ইতিমধ্যেই প্রদত্ত ঋণের আসল এবং সুদ দুই বছরের জন্য মকুব করার সীদ্ধান্ত নিয়েছে।”

স্বীকৃত দ্বিপাক্ষিক ঋণদাতা হিসেবে এক্সপোর্ট-ইম্পোর্ট ব্যাঙ্ক অফ চায়না, সংশ্লিষ্ট আর্থিক সহায়তা সূচক নথিপত্রে শ্রীলঙ্কার অর্থমন্ত্রককে উদ্দেশ্য করে স্পষ্ট উল্লেখ করেছে যে, ২০২২ এবং ২০২৩ অর্থবর্ষের দেয় ঋণের মেয়াদ তারা বৃদ্ধি করবে। ওয়াং জানান।

সেন্ট্রাল ব্যাঙ্ক অফ শ্রীলঙ্কার গভর্নর নন্দলাল ওয়েরাসিংহকে উদ্ধৃত করে, প্রকাশিত রিপোর্টের প্রতিক্রিয়ায় ওয়াং বলেন, শ্রীলঙ্কা আশা করে ঋণ পুনর্বিন্যাস এবং পরিশোধের প্রকৃয়ায় চীন সম্পূর্ণ সহযোগীতা করবে।

লেখক

Leave a comment
scroll to top