Close

World Chess Championship 2023: দাবা বিশ্বযুদ্ধে ডিংকে হারিয়ে এগোলেন নেপোমনিয়াশি

বিশ্ব দাবা প্রতিযোগিতায় এক ভয়ানক স্নায়ুর যুদ্ধ চলছে। ইয়ান নেপোম্নিয়াশ্চি লড়লেন চীনের ডিং লিরেনের বিরুদ্ধে এক অভূতপূর্ব মস্তিষ্কের লড়াই।

দাবার বিশ্বযুদ্ধে ডিংকে হারিয়ে এগোলেন নেপোমনিয়াশি

ফটো: Unsplash/Felix Mittermeier

ইয়ান নেপোমনিয়াশি দ্বিতীয় রাউন্ডের দাবা খেলায় জিতলেন। ১৪ রাউন্ডের যুদ্ধে আপাতত ১.৫-০.৫ ফলাফলে এগিয়ে। বিশ্ব-দাবা চ্যাম্পিয়নশিপের (World Chess Championship 2023) মাত্র দ্বিতীয় রাউন্ডে কোনও প্রতিদ্বন্দ্বীর জয়সূচক ফলাফল সাম্প্রতিক অতীতে হয়নি। নেপোমনিয়াশি মনস্তাত্ত্বিক লড়াইয়ে একটু এগিয়ে রইলেন এই ম্যাচের পরে।

এবারের বিশ্বখেতাবী লড়াই তাৎপর্যপূর্ণ দু’টো কারণে। প্রথমতঃ, অবিসংবাদী বিশ্বজয়ী ম্যাগনাস কার্লসেন স্বেচ্ছায় মুকুট নামিয়ে রেখেছেন। পাঁচবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়ন সরে দাঁড়িয়েছেন খেতাবী লড়াই থেকে। ফলে, ক্যান্ডিডেটস দাবার বিজয়ী ইয়ান নেপোমনিয়াশি এবং দ্বিতীয় স্থানাধিকারী ডিং লিরেন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন খেতাবের জন্য। দ্বিতীয়তঃ, দাবার বোর্ডে মুখোমুখি রাশিয়া বনাম চীন। অভূতপূর্ব ঘটনা! দাবার ইতিহাসে এই প্রথমবার চীন দাবার বিশ্বখেতাবী লড়াইয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে। কিন্তু, নেপোমনিয়াশি রাশিয়ার ভূমিপুত্র হয়েও দেশের প্রতিনিধিত্ব করতে পারছেন না। কারণ, FIDE রাশিয়াকে নির্বাসন দিয়েছে! এও এক রাজনীতি বটে। কত যুদ্ধ আর দেশদখল ক’রে আমেরিকা, ব্রিটেন, ইজরায়েল ইত্যাদি দেশ পার পেয়ে গেল। ক্রীড়াবিশ্বের শীর্ষসংস্থাগুলি রা কাড়ল না। তাদের ক্রীড়াবিদরা নিষিদ্ধ হলেন না। এদিকে ইউক্রেনের বিরুদ্ধে যুদ্ধ শুরুর পরেই রাশিয়াকে নির্বাসন! রাশিয়ার কোনও দাবাড়ু খেলতে চাইলে তাঁকে ফিডের পতাকা নিয়ে খেলতে হবে। বিশ্বখেতাবী লড়াই চলছে কাজাখস্তানের রাজধানী আস্তানায়। উল্লেখ্য, কাজাখস্তানের দুই প্রতিবেশী দেশের নাম চীন এবং রাশিয়া!

ইয়ান নেপোমনিয়াশি। স্নায়ু বটে মানুষটার! জেদ আর পরিশ্রম কাকে বলে, তা দেখিয়ে দিয়েছেন। আগের বিশ্বখেতাবী লড়াইয়ে কার্লসেনের কাছে দুরমুশ হয়ে যাওয়ার পরে মানসিকভাবে বিপর্যস্ত হয়ে দাবা থেকে সাময়িক সরে যাওয়ার কথা ছিল। অথচ, শ্রম, মেধা আর অনুশীলনের মেলবন্ধনে প্রবল দাপটে ফিরে এলেন। ফের ক্যান্ডিডেটস দাবা জিতলেন। অপরাজিত বিজয়ী। এই রেকর্ড ভ্যাসিলি স্মাইস্লভ ছাড়া আর কারোর নেই। স্মাইস্লভ ১৯৫৬ সালে এমন রেকর্ড গড়েছিলেন। তার পরের বছর সোভিয়েত দাবার নীলমণি মিখাইল বটভিনিককে হারিয়ে বিশ্বখেতাব জিতেছিলেন। আর, নেপোমনিয়াশির রেকর্ড? ঈর্ষণীয়! পরিসংখ্যান দিই? বিশ্বনাথন আনন্দের বিরুদ্ধে ৩-২ ফলাফলে এগিয়ে আছেন। কাসপরভের বিরুদ্ধে ২-০ ফলাফলে। আনাতোলি কারপভের বিরুদ্ধে ২-০ ফলাফলে।

ডিং লিরেন। চীনের প্রতিনিধি। আধুনিক দাবাবিজ্ঞানের অন্যতম নিষ্ঠ সাধক। চীনের দাবামহল সোভিয়েত এবং ইউরোপীয় দাবার অনেকটা পরে লড়াই শুরু করেছিল। কিন্তু, অল্প সময়ের মধ্যেই বৈজ্ঞানিক মানসিকতা এবং নিরন্তর অনুশীলনের নীতি সামনে রেখে দুর্লঙ্ঘ্য পাহাড় জয় করেছে। ডিং লিরেন চীন ছেড়ে আমেরিকা বা ইউরোপে পাড়ি দেননি। নিজের দেশের মাটিকে আঁকড়ে থেকে নিজের দাবানীতিকে শাণিত করেছেন। দাবার পরেই প্রিয় খেলা ফুটবল। বেয়ার্ন মিউনিখ আর জুভেন্তাসের ভক্ত! ২০১৬ সালে ২৮৭৫ এলো রেটিং নিয়ে ব্লিৎজ দাবা প্রকরণে সর্বোত্তম দাবাড়ু হয়েছিলেন ডিং। কার্লসেন যুগের দাবাড়ু হয়েও কার্লসেনকে চ্যালেঞ্জের মুখে ফেলে দিয়েছিলেন টানা প্রায় ৪৫০ দিন ধ্রুপদী দাবায় অপরাজিত থেকে- ২০১৭-র অগাস্ট থেকে ২০১৮-র নভেম্বর পর্যন্ত। শীর্ষস্তরের ১০০টি আন্তর্জাতিক ম্যাচে অপরাজিত ছিলেন। কার্লসেন পরের বছর ডিংয়ের রেকর্ড ভেঙে নতুন রেকর্ড গড়েন।

প্রথম দিনের ম্যাচ ড্র হল। প্রায় পাঁচ ঘণ্টার লড়াইয়ে ডিং আর ইয়ান পরস্পরকে মেপে নিলেন। শান্ত মস্তিষ্কে, নিখুঁত নীতিতে এবং কৌশলের সাবধানী প্রয়োগে। খুব বেশি ঝুঁকি নেননি কেউই। সাদা নিয়ে ইয়ান স্প্যানিশ ওপেনিংয়ের বিলম্বিত এক্সচেঞ্জ রকমফের বেছে নিয়েছিলেন।

ইয়ান নেপোমনিয়াশি বনাম ডিং লিরেন (World Chess Championship 2023)

1.e4 e5 2.Nf3 Nc6 3.Bb5 a6 4.Ba4 Nf6 5.O-O Be7 6.Bxc6 dxc6 7.Re1 Nd7 8.d4 exd4 9.Qxd4 O-O 10.Bf4 Nc5 11.Qe3 Bg4 12.Nd4 Qd7 13.Nc3 Rad8 14.Nf5 Ne6 15.Nxe7+ Qxe7 16.Bg3 Bh5 17.f3 f6 18.h3 h6 19.Kh2 Bf7 20.Rad1 b6 21.a3 a5 22.Ne2 Rxd1 23.Rxd1 Rd8 24.Rd3 c5 25.Qd2 c6 26.Rxd8+ Nxd8 27.Qf4 b5 28.Qb8 Kh7 29.Bd6 Qd7 30.Ng3 Ne6 31.f4 h5 32.c3 c4 33.h4 Qd8 34.Qb7 Be8 35.Nf5 Qd7 36.Qb8 Qd8 37.Qxd8 Nxd8 38.Nd4 Nb7 39.e5 Kg8 40.Kg3 Bd7 41.Bc7 Nc5 42.Bxa5 Kf7 43.Bb4 Nd3 44.e6+ Bxe6 45.Nxc6 Bd7 46.Nd4 Nxb2 47.Kf3 Nd3 48.g3 Nc1 49.Ke3 1/2-1/2

তবে, দ্বিতীয় রাউন্ডে নেপোমনিয়াশি অদ্ভুত সুন্দর খেললেন। কাব্যিক ভাষায় ‘ভয়ঙ্কর সুন্দর’। দাবাজগতে এমন একটা চালু কথা আছে যে, কোনও দাবাড়ু সাদা নিয়ে জেতার জন্য খেলে আর কালো নিয়ে ড্র করতে পারলে খুশি থাকে। নেপো ওই চালু কথাটিকে নিয়ে ছিনিমিনি খেলেছেন আজ। একধিক কৌশলগত দানে নেপো বাজিমাত করেছেন বলে অনেকের অভিমত। কিন্তু, নেপোমনিয়াশি অবস্থানগত যুদ্ধে ক্রমশ পর্যাপ্ত সুবিধে ছিনিয়ে নিয়েছেন। একটু একটু ক’রে মাঝছকের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে, রুকের মারাত্মক দুর্গভেদী দান সাজিয়ে (Rg8) এবং সাদার প্রতিরক্ষা ভাঙতে ভাঙতে নেপোমনিয়াশি জিতেছেন। দাবা ভোজবাজি না, ভাগ্যের খেলা না। বিজ্ঞানমনস্কতা, শ্রম আর মেধার কম্বিনেশন!

ডিং প্রথম থেকে একটু রক্ষণাত্মক ছিলেন। পিসের সচলতা থেকে সময়োপযোগী ব্যূহ সাজানো- ডিং কি স্নায়ুদৌর্বল্যে ভুগছিলেন? নাকি সেকেন্ডদের করিয়ে দেওয়া গেম-প্রিপারেশন ঠিক মনে পড়ছিল না? ডিং ৪ নম্বর দানে h3 দান দিয়েছিলেন। নভেলটি! ওপেনিং-এর দানে এমন নভেলটি অপ্রত্যাশিত বটে। হয়তো ডিংয়ের সেকেন্ড রিচার্ড র‍্যাপো এমন নভেলটি দানের প্রস্তুতি নিইয়েছিলেন ডিংকে দিয়ে। কিন্তু আরও অপ্রত্যাশিত ব্যাপার হল, নেপোমনিয়াশি অমন একটা নভেলটির প্রত্যুত্তরে ঘাবড়ে গেলেন না। আক্রমণাত্মক ব্যূহ সাজাতে লাগলেন। প্রতিপক্ষকে ছিঁড়েখুঁড়ে ফেলার এবং বিপর্যস্ত ক’রে দেওয়ার যুদ্ধনীতি।

রথের চাকা বসে যাওয়ার মতোই অমোঘ মুহূর্তে Bg5 খেললেন ডিং। কুড়ি নম্বর দান। তারপরেই নেপোমনিয়াশির সেই অতিমানবিক দান! Rxg5- নিজের রুক বলিদান দিয়ে সাদার মাঝছকের পন খেয়ে আক্রমণের লকগেট খুলে দিলেন। এই দানে ঝুঁকি আছে। কিন্তু ঝুঁকি পেরিয়ে রয়েছে নান্দনিক দানপর্যায়। দর্শক খালি চোখে অনেক সময়ে হকচকিয়ে যান এমন অবস্থানগত বলিদান (positional sacrifice) দেখে। তারপর ধীরে ধীরে উদ্ভাসিত হয় প্রকৃত উদ্দেশ্য।

ডিং বসে যাওয়া রথের চাকা তুলতে পারলেন না। একটা সময় এমন অবস্থা ছিল যখন মাত্র দুই মিনিটে ১৪টা দান দিতে হত! বিশ্ব-চ্যাম্পিয়নশিপের ম্যাচে এই ভয়ঙ্কর চাপ সামলানো অসম্ভব। আর, অসহায় ডিং লিরেনের দিকে অঞ্জলীক ধেয়ে এল- ২৬ নম্বর দানে নেপোমনিয়াশি দিলেন c3 দান। স্বয়ং বিশ্বনাথন আনন্দ লিখলেন, “the most clinical finish”

দু’টো পজিশন দিই গেম থেকে-

এখানে কালো Rxg5 মারবে। দাবার পরিভাষায় ব্রিলিয়ান্ট স্যাক্রিফাইস। অবস্থানগত যুদ্ধে অনেকটা এগিয়ে গেল কালো। কারণ, মাঝছক এরপরে কালোর নিয়ন্ত্রণে আসবে। পনের প্রাবল্য ঢেকে দেবে সাদার প্রতিরোধ।

এই ছবিতে কালো c3 দান খেলছে। বিন্দুমাত্র দ্বিধা নেই। সাদাকে পিষে দেওয়ার যাবতীয় লক্ষ্য পূর্ণ হতে চলেছে। কালোর অপ্রতিরোধ্য পনকে আটকায় কার সাধ্যি?

পুরো গেম

ডিং লিরেন বনাম ইয়ান নেপোমনিয়াশি (World Chess Championship 2023)

1.d4 Nf6 2. c4 e6 3. Nf3 d5 4. h3 dxc4 5. e3 c5 6. Bxc4 a6 7. O-O Nc6 8. Nc3 b5 9. Bd3 Bb7 10. a4 b4 11. Ne4 Na5 12. Nxf6+ gxf6 13. e4 c4 14. Bc2 Qc7 15. Bd2 Rg8 16. Rc1 O-O-O 17. Bd3 Kb8 18. Re1 f5 19. Bc2 Nc6 20. Bg5 Rxg5 21. Nxg5 Nxd4 22. Qh5 f6 23. Nf3 Nxc2 24. Rxc2 Bxe4 25. Rd2 Bd6 26. Kh1 c3 27. bxc3 bxc3 28. Rd4 c2 29. Qh6 e5 0-1

১৪ রাউন্ডের প্রতিযোগিতা। যে দাবাড়ু আগে ৭.৫ পয়েন্টে পৌঁছবেন তিনি দাবা প্রতিযোগিতায় বিশ্বজয়ী ঘোষিত হবেন। এখনও অনেক উত্তাপ পোহানো বাকি। তবে, নিঃসন্দেহে মনস্তাত্ত্বিক সুবিধে অর্জন করে নিলেন নেপোমনিয়াশি।

লেখক

  • প্রবুদ্ধ ঘোষ

    প্রবুদ্ধ ঘোষ, জাতীয় স্তরের দাবাড়ু ছিলেন, বর্তমানে বেঙ্গল চেস অ্যাসোশিয়েশনের আধিকারিক, যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের তুলনামূলক সাহিত্য বিভাগের গবেষক, কবি, সাহিত্যিক, প্রাবন্ধিক।

প্রবুদ্ধ ঘোষ, জাতীয় স্তরের দাবাড়ু ছিলেন, বর্তমানে বেঙ্গল চেস অ্যাসোশিয়েশনের আধিকারিক, যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের তুলনামূলক সাহিত্য বিভাগের গবেষক, কবি, সাহিত্যিক, প্রাবন্ধিক।

Leave a comment
scroll to top