Close

২০৪০ সাল নাগাদ এক কোটি ছাড়াবে জাপানে কর্মী ঘাটতি

জাপানের জনসংখ্যা হ্রাসের উদ্বেগের মধ্যেই দেশটি ২০৪০ সাল নাগাদ ব্যাপকভাবে কর্মী ঘাটতির সঙ্কটে পড়তে পারে, জানিয়েছে জাপানের সরকারি সংবাদমাধ্যম এনএইচকে।

জাপানের জনসংখ্যা হ্রাসের উদ্বেগের মধ্যেই দেশটি ২০৪০ সাল নাগাদ ব্যাপকভাবে কর্মী ঘাটতির সঙ্কটে পড়তে পারে, জানিয়েছে জাপানের সরকারি সংবাদমাধ্যম এনএইচকে।

প্রতিনিধিত্বমূলক ছবি

জাপানের জনসংখ্যা হ্রাসের উদ্বেগের মধ্যেই দেশটি ২০৪০ সাল নাগাদ ব্যাপকভাবে কর্মী ঘাটতির সঙ্কটে পড়তে পারে, জানিয়েছে জাপানের সরকারি সংবাদমাধ্যম এনএইচকে।সংবাদমাধ্যমটি বলছে ২০৪০ সালে জাপানে প্রায় এক কোটি কর্মী ঘাটতির সম্ভাবনা রয়েছে। শুধু তাই নয়, শ্রমের চাহিদা স্থিতিশীল থাকার পরেও ২০২২ সাল থেকে ২০৪০ সালের মধ্যে জাপানের শ্রমের বাজারে কর্মীর জোগান ১২% হ্রাস পাবে বলে জানিয়েছে সংবাদমাধ্যমটি।

ভবিষ্যতের আনুমানিক মোট জিডিপি এবং লিঙ্গ-প্রজন্মের ভিত্তিতে কর্মীদের অনুপাতের ওপর নির্ভর করে এই পূর্বাভাস তৈরি করেছে রিক্রুট ওয়ার্কস ইন্সটিটিউট নামে জাপানের এক গবেষণা প্রতিষ্ঠান। 

গত বুধবার, ২৯শে মার্চ, গবেষণা প্রতিষ্ঠানটি জানিয়েছে, শুধু টোকিও নয়, জাপানের সব জেলাতেই কর্মীর অভাবের সম্ভাবনা রয়েছে।প্রতিষ্ঠানটি আরও জানিয়েছে যে ১৮টি জেলায় শ্রমিক ঘাটতির হার ২০% এর বেশি হবে, যা জাপানের মোট শ্রমিকের প্রায় এক তৃতীয়াংশ।

জাপানের নাগরিকদের একটি বড় অংশই এখন প্রবীণ। এই পরিস্থিতিতে জাপানের জনসংখ্যা বৃদ্ধির জন্য বিশেষ ব্যবস্থা নিচ্ছে জাপান সরকার। সন্তান নেওয়ায় উৎসাহ দিতে  আর্থিক উৎসাহ ভাতাও দিয়ে থাকে জাপান সরকার। 

সরকারের তহবিল থেকে চার লাখ ২০ হাজার ইয়েন দেওয়া হচ্ছে প্রতিটি শিশু জন্মের পর তার অভিভাবককে। কিন্তু তাতেও জন্মহার বাড়ছে না জাপানে।

লেখক

Leave a comment
scroll to top