Close

রাশিয়ার উপর পশ্চিমা নিষেধাজ্ঞা ইউরোপের অর্থনীতিরই ক্ষতি করছে, বললেন হাঙ্গেরির প্রধানমন্ত্রী

রাশিয়ার উপর পশ্চিমা নিষেধাজ্ঞা আদতে ইউরোপের কোনো মঙ্গল করেনি, বরং ক্ষতি করেছে বলে মনে করেন হাঙ্গেরির প্রধানমন্ত্রী ভিক্টর অরবান।

রাশিয়ার উপর পশ্চিমা নিষেধাজ্ঞা ইউরোপের অর্থনীতিরই ক্ষতি করছে, বললেন হাঙ্গেরির প্রধানমন্ত্রী

ছবি সত্ত্ব: ভিক্টর অরবান/ফেসবুক

হাঙ্গেরির প্রধানমন্ত্রী ভিক্টর অরবান বলেছেন, রাশিয়ার উপর পশ্চিমা নিষেধাজ্ঞাগুলি ইউক্রেন যুদ্ধের অবসান ঘটাতে ব্যর্থ হয়েছে, তবে তার পরিবর্তে এটা ইউরোপের অর্থনীতিকে ধ্বংস করেছে এবং মুদ্রাস্ফীতি বাড়িয়েছে।

রবিবার, ১৯শে ফেব্রুয়ারি, একটি ফেসবুক পোস্টে প্রধানমন্ত্রী অরবান ইউরোপীয় ইউনিয়নের রাশিয়ার উপর নিষেধাজ্ঞার কড়া সমালোচনার করেছেন, তিনি দাবি করেছেন যে ব্রাসেলস জ্বালানি খাতে যে বিধিনিষেধ লাগু করেছে তার ফলে মুদ্রাস্ফীতি মোকাবিলায় সমস্যা হচ্ছে। তিনি বলেন, “রোগের নাম মুদ্রাস্ফীতি, এবং ভাইরাসটির নাম ব্রাসেলসের নিষেধাজ্ঞা”। 

https://www.facebook.com/orbanviktor/posts/pfbid0VWSF8HkBmXcZnfQ5ByVbMngXNXZ4u8T9MJBYvpSMDTHoVJqi5QFZYTEM9DxrDZ4Ml

অরবান এই নিষেধাজ্ঞাগুলিকে “ব্রাসেলসের যুদ্ধ নীতির অস্ত্র” হিসাবে চিহ্নিত করেছেন এবং তিনি বলেছেন যে যখন ইউরোপীয় ইউনিয়ন রাশিয়াকে লক্ষ্য করে এই অস্ত্রটি ব্যবহার করতে গিয়ে, উলটে নিজেরই ক্ষতি করেছে।

প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, “এটা খুব বেশি দিন আগের কথা নয় যে ব্রাসেলস প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল, এই নিষেধাজ্ঞাগুলি যুদ্ধের অবসান ঘটাবে। এক বছর পেরিয়ে গেছে, এবং যুদ্ধের সমাপ্তি ঘনিয়ে আসছে না, আরও দূরে চলে যাচ্ছে।”

অরবান আরও বলেন যে যখন ইউরোপীয় ইউনিয়ন কর্তৃপক্ষ প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল যে শক্তি খাতে নিষেধাজ্ঞাগুলি বাড়ানো হবে না, শেষ পর্যন্ত তারা প্রাকৃতিক গ্যাসের দাম রেকর্ড স্তরে পাঠিয়েছে।

 প্রধানমন্ত্রী অরবান উল্লেখ করেছেন যে গ্যাস আংশিকভাবে বিদ্যুতের খরচ নির্ধারণ করে – “গ্যাসের দাম বৃদ্ধির সাথে সাথেই বিদ্যুতের দাম বৃদ্ধি হয়েছে”।

 “যদি ব্রাসেলস যুদ্ধ করতে চায়, তবে মুদ্রাস্ফীতির বিরুদ্ধে লড়াই করা উচিত। এটা তার করছে না” বলে অরবান দাবি করেছেন, হাঙ্গেরিয়ান কর্তৃপক্ষ অর্থনৈতিক পতন থেকে পরিবার এবং সংস্থাগুলিকে রক্ষা করার জন্য যথাসাধ্য চেষ্টা করছে।

হাঙ্গেরি, রাশিয়ান শক্তির উপর অত্যন্ত নির্ভরশীল একটি দেশ। ২০২২ সালের ফেব্রুয়ারিতে ইউক্রেনের বিরুদ্ধে রাশিয়া বিশেষ সামরিক অভিযান শুরু করার পর থেকে ইউরোপীয় ইউনিয়নের মস্কোর উপর আরোপিত নিষেধাজ্ঞার বিরুদ্ধে বারবার কথা বলেছেন অরবান। বুদাপেস্ট যুক্তি দিয়েছে যে বিধিনিষেধগুলি রাশিয়াকে দূর্বল করতে ব্যর্থ হয়েছে, কিন্তু ইউরোপীয় অর্থনীতির ক্ষতি করেছে।

২০২৩ এর জানুয়ারির শেষের দিকে, অরবান ইঙ্গিত দিয়েছিলেন যে হাঙ্গেরি রাশিয়ার পারমাণবিক শক্তি সেক্টরকে লক্ষ্য করে ইউরোপীয় ইউনিয়নের নিষেধাজ্ঞার বিরুদ্ধে ভেটো দেবে। বুদাপেস্ট রাশিয়া থেকে তেল ও গ্যাস আমদানি সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ করার পরিকল্পনাকেও প্রতিহত করেছে। এই দেশটি রাশিয়া থেলে জীবাশ্ম জ্বালানি ক্রয় করার ক্ষেত্রে বেশ কিছু ছাড় পেয়েছে।

লেখক

Leave a comment
scroll to top