Close

সুপ্রিম কোর্টের রায় উলটে মোদির অধ্যাদেশ, কেজরীওয়ালের পাশে নীতিশ কুমার

নীতীশ কুমার ২০শে মে দিল্লিতে কেজরিওয়ালের সাথে সাক্ষাৎ করেন এবং সুপ্রিম কোর্টের রায়কে‌‌ খারিজ করা ইউনিয়ন সরকারের অধ্যাদেশকে অসাংবাধানিক বলে মন্তব্য করে।

দিল্লির ক্ষমতা দখলের লড়াইয়ে ফের উইনিয়ন সরকারে শাসক দল ভারতীয় জনতা পার্টি(BJP) বনাম দিল্লি রাজ্য সরকারের শাসক দল আম আদমি পার্টি (AAP)। প্রশাসনিক ও আমলাতন্ত্রের উপর ক্ষমতা দাবি করছে উভয়পক্ষই।

শুক্রবার ১৯ শে মে রাত ১১টা নাগাদ অর্ডিন্যান্স এনে ১০ পাতার গেজেট বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে কেন্দ্র। সেখানে আমলা বদলির সিদ্ধান্ত নিতে গঠন করা হবে, ” ন্যাশানাল ক্যাপিটাল সিভিল সার্ভিসেস অথোরিটি”। এর চেয়ারপার্সন নির্বাচিত দিল্লি সরকারের মুখ্যমন্ত্রী হলেও, কমিশনে কেন্দ্র এবং লেফটেন্যান্ট গভর্নরের প্রতিনিধিদের সংখ্যা বেশি হওয়ায় নীতি নির্ধারনকারী হবে‌ তারা।

সম্প্রতি সুপ্রিম কোর্টের পক্ষ থেকে আমলা বদলের অধিকার দেওয়া হয় দিল্লি সরকারের হাতেই। এবার সেই রায় বাতিল করে নতুন অধ্যাদেশ আনল মোদি সরকার।

ন্যাশনাল ক্যাপিটাল টেরিটরি অফ দিল্লি অ্যাক্ট, ১৯৯১ কে সংশোধন করে এই অধ্যাদেশ জারি কেন্দ্রের।এই নিয়ে দিল্লির রাজনৈতিক মহলে বেশ হাওয়া গরম হয়।

কেন্দ্রের অধ্যাদেশের বিরোধীতা করে তীব্র কটাক্ষ করে দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরীওয়াল প্রকাশ্য সংবাদ মাধ্যমে বলেন, “সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশকে অপমান করা হচ্ছে।”

এছাড়াও দিল্লির শিক্ষামন্ত্রী আতিশী মারলেনা এই প্রসঙ্গে বলেন, ‘‘সুপ্রিম কোর্টের রায় উপেক্ষা করতে অধ্যাদেশ জারি করেছে কেন্দ্র। এই অধ্যাদেশ পুরোপুরি অসাংবিধানিক।”

কেন্দ্র বনাম দিল্লির সরকারের লড়াইয়ে সামিল হয়েছে বিরোধী ঐক্যের তরফে বিহারের মুখ্যমন্ত্রী নীতীশ কুমারও। কর্ণাটকে Bjp-র বিরাট পরাজয়ের পর আগামী লোকসভা ভোটে দিল্লির ইউনিয়ন সরকারের মসনদ থেকে নরেন্দ্র মোদীকে সরাতে রাহুল গান্ধী, মল্লিকার্জুন খাড়্গে, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, নবীন পট্টনায়ক, শরদ পাওয়ার ও উদ্ধব ঠাকরের পর এবার কেজরিওয়ালও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকায়।

নীতীশ কুমার ২০শে মে দিল্লিতে কেজরিওয়ালের সাথে সাক্ষাৎ করেন এবং সুপ্রিম কোর্টের রায়কে‌‌ খারিজ করা ইউনিয়ন সরকারের অধ্যাদেশকে অসাংবাধানিক বলে মন্তব্য করে।

এ ছাড়া মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছিলেন, যে রাজ্যে যে দল শক্তিশালী সেখানে তাদেরকে সমর্থন দিতে হবে। বিজেপি বিরোধী সব দলের একত্রিত মহাজোটেরই পূর্বাভাস রাজনৈতিক মহলে।

লেখক

Leave a comment
scroll to top