Close

CBI নজরে ‘নাটের গুরু’, রাজ্যে ২১ জায়গায় হানা

রাজ্যে পুর-নিয়োগ দুর্নীতি নিয়ে ২১ জায়গায় CBI হানা। ভাঙা হল পৌরসভার আলমারি, তন্ন তন্ন করে খোঁজা হচ্ছে রেকর্ডরুম। বিক্ষোভে শাসকদল।

আজ সকাল থেকে রাজ্যের পুর ও নগরোন্নয়ন দপ্তর সহ ২০ জায়গায় একজোগে CBI হানা। নিশিনায় ১৮টি পৌরসভা। এর মধ্যে আছে দমদম, দক্ষিণ দমদম, কামারহাটি, বরাহনগর, পানিহাটি, টিটাগর, হালিশহর, নিউব্যারাকপুর, শান্তিপুর, কাঁচরাপাড়া, টাকি সহ প্রায় ২০টি পৌরসভা।

প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ দুর্নীতি মামলার তদন্ত করতে গিয়ে পুরসভা নিয়োগ সংক্রান্ত তথ্য হাতে পায় ইডি। প্রমোটার অয়ন শীলের অফিস বাড়িতে অভিযান চালানোর সময় পুরসভা নিয়োগ সংক্রান্ত নথি পান ইডি কর্তারা। অভিযোগ পুরসভার বিভিন্নপদে নিয়োগের ক্ষেত্রে টাকার বিনিময়ে চাকরি বিক্রি হয়েছে । পুরসভার নিয়োগে সরাসরি দুর্নীতির তথ্য পাওয়া যায় বলে দাবি তদন্তকারী সংস্থার। এছাড়া সব মিলিয়ে নজরে রাজ্যের ষাটটির বেশি পুরসভার নিয়োগ।

বুধবার পুর নিয়োগ দুর্নীতির তদন্তে তেঁড়েফুঁড়ে ময়দানে নেমেছে CBI। সল্টলেকে পুর ও নগরোন্নয়ন দফতরে হানা দেন কেন্দ্রীয় গোয়েন্দারা। সূত্রের খবর, আজ সকাল ১১টা নাগাদ রাজ্যের মোট ১৪টি পুরসভায় CRPF সহযোগে পৌঁছন CBI-এর একদল আধিকারিক।

FIR করার পরে এটাই প্রথম CBI তল্লাশি অভিযান। প্রাথমিক তদন্তে জানা গিয়েছে, মজদুর, ক্লার্ক, পিয়ন, অ্য়াসিস্ট্যান্ট থেকে শুরু করে ড্রাইভার- সর্বত্র টাকার বিনিময়ে নিয়োগের অভিযোগ। এরমধ্যে পাণিহাটি পৌরসভার সাতটি আলমারি খোলার চেষ্টা করে CBI। শেষে চাবি না পাওয়ায় চাবিওয়ালা আনিয়ে খোলা হয় আলমারি গুলো। দক্ষিণ দমদম পৌরসভায় রাষ্ট্রীয় ব্যাঙ্ক আধিকারিকদের নিয়ে চলছে CBI তদন্ত। কামারহাটি পৌরসভায় তন্ন তন্ন করে খোঁজা হচ্ছে রেকর্ড রুম।


২০১৪ সালের পর থেকে এই পুরসভাগুলিতে কীভাবে নিয়োগ হয়েছে। কতজনকে নিয়োগ করা হয়েছে। নিয়োগ নিয়ে বিজ্ঞপ্তি দেওয়া হয়েছিল কি না, কী পদ্ধতিতে বিভিন্ন ধাপে বাছাই হয়েছে। কোন কোন প্রার্থীকে বাছাই করে হয়েছিল সেটা কীসের ভিত্তিতে বাছাই করা হয়েছিল, কী প্রক্রিয়ায় গোটা নিয়োগ হয়েছিল, বাছাইয়ের প্রক্রিয়ায় কারা জড়িত ছিলেন সবই খুঁজে দেখছেন CBI আধিকারিকরা।


গত ১৯ মার্চ নিয়োগ দুর্নীতি মামলায় অয়নকে গ্রেফতার করেছিল আর এক তদন্তকারী সংস্থা এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট (ইডি)। ইডির তরফে দাবি করা হয়, তাঁর সল্টলেকের অফিসে তল্লাশি চালিয়ে রাজ্যের একাধিক পুরসভার বিভিন্ন পদে চাকরিপ্রার্থীদের ওএমআর শিট (উত্তরপত্র) পাওয়া গিয়েছে। তদন্তকারীদের সূত্রে জানা যায়, ‘ABS Infozone’ নামে অয়নের সংস্থার মাধ্যমে একাধিক পুরসভায়

নিয়োগ হয়েছে। ইডি সূত্রে এ-ও জানা যায়, জেরায় অয়ন তদন্তকারীদের জানিয়েছেন যে, বিভিন্ন পুরসভায় চাকরি পাইয়ে দেওয়ার বিনিময়ে তিনি মোট ২০০ কোটি টাকা তুলেছিলেন। তদন্তকারী সংস্থা সূত্রেই জানা যায়, পুরসভায় সাফাইকর্মী, অ্যাম্বুল্যান্স চালক, পিওন, পাম্পচালক প্রভৃতি পদের জন্য বিভিন্ন দর রাখতেন অয়ন। ৪ থেকে ৭ লক্ষ টাকায় সেই সব চাকরি ‘বিক্রি’ হত।

যদিও তদন্তে কি উঠে আসছে তা নিয়ে এখনও কোনোও তথ্য দিচ্ছেন না CBI কর্তারা। গোটা রাজ্যে সিবিআই হানা নিয়ে সরব শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেস। জায়গায় জায়গায় চলছে অবরোধ বিক্ষোভ।

লেখক

Leave a comment
scroll to top