Close

‘মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণে উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি ভারতের’- বললেন RBI গভর্নর

আজ RBI গভর্নর শক্তিকান্ত দাস আলোচনা প্রসঙ্গে বলেছেন, 'মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণে উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি করেছে ভারতীয় অর্থনীতি।

আজ RBI গভর্নর শক্তিকান্ত দাস আলোচনা প্রসঙ্গে বলেছেন, 'মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণে উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি করেছে ভারতীয় অর্থনীতি।

ভারতীয় অর্থনীতি ক্রমেই আরও শক্তিশালী এবং স্থিতিশীল হচ্ছে বলে আজ জানিয়েন RBI গভর্নর। এর মধ্যেই রেপো রেট নিয়ে বড় সিদ্ধান্ত নিল RBI। এর ফলে ঋণ গ্রহণকারী আম জনতা কিছুটা হলেও স্বস্তিতে থাকতে পারেন বলে মনে করা হচ্ছে। তবে আমানতকারীদের জন্য সুদের হার হয়ত বাড়াবে না ব্যাঙ্কগুলি। মনেটরি পলিসির বৈঠক শেষে আজ রেপো রেট সংক্রান্ত বড় ঘোষণা করেন আরবিআই গভর্নর। আজ শক্তিকান্ত দাস বলেন, ‘ভারতীয় অর্থনীতি ক্রমেই আরও শক্তিশালী এবং স্থিতিশীল হচ্ছে।’ এই পরিস্থিতিতে মনেটরি পলিসি কমিটির বৈঠকে রেপো রেট নিয়ে বড় সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়। ভারতীয় অর্থনীতিকে স্থিতিশীল রাখতেই রেপো রেট নিয়ে এই সিদ্ধান্ত বলে জানান আরবিআই প্রধান।

বৃহস্পতিবার RBI জানিয়েছে যে মনেটরি পলিসি কমিটির বৈঠকে রেপো রেট অপরিবর্তিত রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে তাদের তরফে। এর ফলে এই ত্রৈমাসিকে রেপো রেট ৬.৫ শতাংশ থাকবে বলে জানিয়েছেন তারা। প্রসঙ্গত, গত বছরের মে মাস থেকে কেন্দ্রীয় ব্যাঙ্ক মূল্যস্ফীতির উদ্বেগের কারণে ধাপে ধাপে রেপো রেট ২৫০ বেসিস পয়েন্ট বাড়িয়েছিল। তবে বিগত তিনটি মনেটরি পলিসি কমিটির বৈঠকে রেপো রেট অপরিবর্তিতই রাখা হয়েছে RBI-এর তরফে।

ইতিপূর্বে গত ফেব্রুয়ারি মাসে রেপো রেট ২৫ বেসিস পয়েন্ট বৃদ্ধি করেছিল RBI। তবে গত এপ্রিল মাসে রেপো রেট অপরিবর্তিত রাখা হয়। পরে জুন মাসেও পরিবর্তন করা হয়নি রেপো রেটের। আর আজ আরবিআই গভর্নর শক্তিকান্ত দাস ঘোষণা করলেন, অগস্টে মনেটারি পলিসি কমিটির বৈঠকে রেপো রেট অপরিবর্তিত রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। উল্লেখ্য, এই কমিটিতে আরবিআই-এর তিনজন আছেন এবং সরকারের তরফে আরও তিনজনকে মনোনীত করা হয়ে থাকে। এদিকে এবারে রেপো রেট বৃদ্ধি না পাওয়ার ফলে গৃহঋণ গ্রাহকদের পকেটে নতুন করে চাপ পড়বে না বলেই আশা করা হচ্ছে। কারণ এই আবহে অপরিবর্তিত থাকতে পারে ইএমআই এবং ঋণের ওপর সুদের হার। তবে রেপো রেট বৃদ্ধি না হওয়ায় বিভিন্ন ব্যাঙ্কের স্থায়ী আমানতের হারও হয়ত অপরিবর্তিত থাকবে বলে মনে করছেন আমানতকারীরা।

আজ RBI গভর্নর শক্তিকান্ত দাস আলোচনা প্রসঙ্গে বলেছেন, ‘মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণে উল্লেখযোগ্য অগ্রগতি করেছে ভারতীয় অর্থনীতি। ভারতীয় অর্থনীতি ক্রমেই আরও শক্তিশালী এবং স্থিতিশীল হচ্ছে। ভারতের সামষ্টিক অর্থনীতির মৌলিক বিষয়গুলি শক্তিশালী হয়েছে। বিশ্বব্যাপী অর্থনৈতিক বৃদ্ধিতে ভারত প্রায় ১৫ শতাংশ অবদান রাখছে। বিশ্ব অর্থনীতিতে যে পরিবর্তন ঘটছে, তা থেকে উপকৃত হতে পারে ভারত।’

লেখক

Leave a comment
scroll to top