Close

এ যেন নাৎসি জার্মানি! ইউক্রেনে আক্রান্ত কমিউনিস্ট কোননোভিচ ভাইয়েরা

ইউক্রেনের লেনিনবাদী কমিউনিস্ট যুব ইউনিয়নের নেতা মিখাইল কোননোভিচ এবং তার ভাই আলেক্সান্ডার ২০২২ সালের মার্চে প্রশাসনের হাতে গ্রেপ্তার হন।

ইউক্রেনের লেনিনবাদী কমিউনিস্ট যুব ইউনিয়নের নেতা মিখাইল কোননোভিচ এবং তার ভাই আলেক্সান্ডার ২০২২ সালের মার্চে প্রশাসনের হাতে গ্রেপ্তার হন।

গ্রেট ব্রিটেনের মার্কসবাদী-লেনিনবাদী কমিউনিস্ট পার্টি তাদের ওয়েবসাইটে জানিয়েছেন, “ইউক্রেনের কোননোভিচ ভাইরা আমাদের এই জরুরি আবেদন পাঠিয়েছেন । তারা তাদের জীবনের জন্য ভয় পাচ্ছেন এবং আমাদের পক্ষ থেকে জরুরী সংহতিমূলক পদক্ষেপের জন্য অনুরোধ করেছেন। প্রসঙ্গত, গত ২০২২ সালের মার্চ মাসে মিখাইল ও আলেকজান্ডার কোননোভিচ রাশিয়া ও বেলারুশের সাথে যোগসূত্র থাকার অভিযোগে ইউক্রেনের প্রশাসনের হাতে গ্রেপ্তার হ’ন। তারপর দীর্ঘদিন বিচার চললেও তাদের কোর্টমুখী করা হয়নি। ওই বছর ৫ই জুলাই ইউক্রেনের কমিউনিস্ট পার্টিকে নিষিদ্ধ ঘোষণা করে ইউক্রেন সরকার। বর্তমানে তারা জেলের বাইরে কিন্তু কার্যত গৃহবন্দি বলেই জানা গিয়েছে।


সিপিজিবি-এমএল-এর তরফ থেকে ওই প্রকাশনায় জানানো হয়েছে, গত ৬ই জুলাই, ইউক্রেন কমিউনিস্ট পার্টির দুই সদস্য মিখাইল কোননোভিচ আর আলেকজান্ডার কোননোভিচ একটি ভিডিওতে বার্তা দিয়েছেন, “আমরা, কোনোনোভিচ ভাইরা, ইউক্রেনীয় কমিউনিস্ট এবং অ্যান্টিফ্যাসিস্ট , ওয়ার্ল্ড ফেডারেশন অফ ডেমোক্রেটিক ইয়ুথ, কমিউনিস্ট, ইউরোপের সমস্ত জঙ্গি বামপন্থী এবং সারা বিশ্বের অ্যান্টিফ্যাসিস্টদের প্রতি আমাদের সাহায্য করার আহ্বান জানাচ্ছি। আমরা আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষণা করছি যে জেলেনস্কি সরকার আমাদের হত্যার প্রস্তুতি নিচ্ছে। পুলিশ অফিসার ইয়েভগেন ক্রাভচুকের মধ্যস্থতার মাধ্যমে সরকার আমাদের হত্যার বিষয়ে প্রকাশ্যে এবং বারবার হুঁশিয়ারি দিয়েছে।”

এই ভিডিওর মাধ্যমে তারা আরও জানিয়েছেন, “পুলিশ অফিসার ফেসবুকে আমাদের হত্যার জন্য কল আউট করেছে এবং সক্রিয়ভাবে আমাদের বাড়ির ঠিকানা প্রচার করছে, আমরা গৃহবন্দী আছি এবং কোথাও যেতে পারছি না।” কোননোভিচ ভাইদের বক্তব্য অনুযায়ী, একজন পুলিশ অফিসার শুধুমাত্র সরকারের কাছ থেকে সরকারী অনুমোদন নিয়েই, নির্ভয়ে জনসমক্ষে এই ধরনের বিবৃতি এবং আহ্বান জানাতে পারেন।

প্রসঙ্গত, ইউক্রেনের প্রশাসন আনুষ্ঠানিকভাবে কোননোভিচ ভাইদের অবৈধ ঘোষণা করেছে এবং স্পষ্টভাবে বলেছে যে তাদের হত্যার জন্য কাউকে শাস্তি দেওয়া হবে না। এই বিষয়ে তারা ভিডিওটিতে বলেছেন, “১৯৩০-এর দশকে নাৎসি জার্মানিতে এই ধরণের অনুশীলন ছিল, যেখানে কমিউনিস্ট এবং অ্যান্টিফ্যাসিস্টদের নিষিদ্ধ করা হয়েছিল।”

বিশ্বব্যাপী কমিউনিস্টদের কাছে সাহায্য চেয়ে মিখাইল কোননোভিচ বার্তা দিয়েছেন, “কমরেডস, আমরা আপনাকে ইউক্রেনীয় দূতাবাস এবং কনস্যুলেট, ইউরোপীয় ইউনিয়নের প্রতিনিধিদের অফিস, ওএসসিই এবং অন্যান্য আন্তর্জাতিক কর্তৃপক্ষ এবং সংস্থার সম্মুখে প্রতিবাদ করতে বলছি, যাতে জেলেনস্কি শাসনের দ্বারা আমাদের হত্যা প্রতিরোধ করতে ইউক্রেনীয় কর্তৃপক্ষের সাথে সমাবেশের আয়োজন করা হয়।”

লেখক

Leave a comment
scroll to top