Close

দক্ষিণ সুদান আন্তঃসীমান্ত যুদ্ধের প্রান্তে – মাইকেল আতিত

দক্ষিণ সুদানের সীমানার অভ্যন্তরে যুদ্ধের সূচনা করেছে সুদানের যুদ্ধ। গোটা দেশ এই মুহূর্তে শরণার্থী সমস্যার মধ্যে দিয়ে এগোচ্ছে।

মাইকেল আতিত দক্ষিণ সুদান-এর একজন স্থানীয় সাংবাদিক। তিনি বলেছেন, সুদানের আভ্যন্তরীন সংঘাত মানবিক সমস্যাকে আরও বাড়িয়ে তুলছে এবং এই পরিস্থিতিতে সীমান্তের ওপারে শরণার্থী সমস্যার সূত্রপাত ঘটাচ্ছে ।

চলতি বছরের এপ্রিলে সুদানের সেনাবাহিনী ও আধাসামরিক র‌্যাপিড সাপোর্ট ফোর্সের মধ্যে সশস্ত্র সংঘর্ষ শুরু হয়। সুদানের অশান্ত পরিবেশ প্রতিবেশী দেশ দক্ষিণ সুদানের উপর উল্লেখযোগ্য প্রভাব ফেলেছে এবং এর সীমানায় মাইগ্রেশনের সূত্রপাত ঘটাচ্ছে, স্থানীয় সাংবাদিক মাইকেল আতিতের রাশিয়া টুডে-কে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তাই জানা গেছে। এর ফলে দক্ষিণ সুদানের অভ্যন্তরে রসদের সঙ্কট দেখা যাচ্ছে‌। দুর্ভিক্ষের আশঙ্কা করা হচ্ছে।

মাইকেল আতিত রাশিয়া টুডে-কে জানিয়েছেন, দক্ষিণ সুদানের সরকার ইতিমধ্যেই দক্ষিণ সুদানের রাজধানী জুবায় সুদানী শরণার্থীদের জন্য একটি স্থানীয় ক্যাম্প তৈরি করেছে। যেটি ইতিমধ্যেই দক্ষিণ সুদানে খাদ্য ও পানীয় সরবরাহের উপর একটি বিরাট বোঝা হয়ে দাঁড়িয়েছে। জাতিসংঘের রিফিউজি এজেন্সির মতে, দক্ষিণ সুদানের নাগরিকদের ৭৫ শতাংশের মানবিক সহায়তার প্রয়োজন এবং জনগণের একটি উল্লেখযোগ্য অংশ দুর্ভিক্ষের মুখে দাঁড়িয়ে আছে।

কয়েক দশকের সংঘর্ষের পর দক্ষিণ সুদান ১২ বছর আগে তার উত্তরের প্রতিবেশীর কাছ থেকে স্বাধীনতা অর্জন করেছে। দেশের অর্থনীতি গভীরভাবে তেল রপ্তানির উপর নির্ভরশীল। যা প্রতিবেশীর স্থিতিশীলতায় আগ্রহী হওয়ার একটি অন্যতম কারণ। এই মুহূর্তে যুদ্ধ পরিস্থিতির জন্য কেনিয়া দক্ষিণ সুদান থেকে তার দূতাবাস গুটিয়ে নিয়েছে বলে খবর।

লেখক

Leave a comment
scroll to top