Close

বিপর্যয় মোকাবিলায় গাফিলতি, তুরস্কে ক্ষোভ এরদোয়ান-এর বিরুদ্ধে

তুরস্কে ভূমিকম্পে বিপর্যয় মোকাবিলা ও উদ্ধারকার্যে ব্যাপক গাফিলতির জন্যে দুর্গত অঞ্চলের মানুষ ও বিরোধীরা রাষ্ট্রপতি এরদোয়ান কে দায়ী করছেন।

বিপর্যয় মোকাবিলায় গাফিলতি, তুরস্কে ক্ষোভ এরদোয়ান-এর বিরুদ্ধে

তুরস্কে ভূমিকম্পে মৃতের সংখ্যা বাড়ার সাথে সাথে রাষ্ট্রপতি রেজেপ তাইয়িপ এরদোয়ান-এর ওপর জনসাধারণের ক্ষোভও বাড়ছে বলে খবর। এরদোয়ান-এর সরকার পরিস্থিতি মোকাবেলায় শোচনীয় ভাবে ব্যর্থ হয়েছে এবং সেই কারণেই গত সোমবারের ভূমিকম্পে এত মানুষ প্রাণ হারিয়েছে বলে তাঁর বিরুদ্ধে বিরোধীদের অভিযোগ।

তুরস্কে ভূমিকম্প কবলিত শহরগুলোর অধিবাসীরা বলছেন, ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের কাছে পৌঁছানোর জন্য তুরস্ক সরকারের দুর্যোগ ও জরুরি ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষ দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণ করতে ব্যর্থ হয়েছে। অনেকের দাবি, ভূমিকম্পের ৪৮ ঘণ্টা কেটে গেলেও বহু ক্ষতিগ্রস্ত এলাকায় বিন্দুমাত্র ত্রাণ-সাহায্য পৌঁছায়নি।

বুধবার, ৮ই ফেব্রুয়ারি, এরকম ক্ষুব্ধ পরিস্থিতির মধ্যেই রাষ্ট্রপতি এরদোয়ান ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে, এই রকম কিছু এলাকা পরিদর্শনে যান। দুর্যোগ পরিস্থিতি মোকাবিলা করার ব্যাপারে প্রাথমিকভাবে কিছু সমস্যা হয়েছে বলে কাহরামানমারাস শহরে সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলার সময় স্বীকারও করেন এরদোয়ান।

যদিও উদ্ধারকাজে দেরি হওয়ার জন্য তিনি ক্ষতিগ্রস্ত বিমানবন্দর ও রাস্তাঘাটকেই দায়ী করেছেন, তবে এরদোয়ান জানিয়েছেন যে, এখন স্বাভাবিকভাবেই চলছে উদ্ধারকাজ।

তুরস্কের দক্ষিণে কয়েকটি শহর পরিদর্শনের সময় রাষ্ট্রপতি এরদোয়ান বলেন, “আমাদের যা কিছু রয়েছে, তার সমস্তটাই আমরা কাজে লাগিয়েছি। এখন পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে।”

তবে এরদোয়ান-এর দাবির বিপক্ষে ক্ষতিগ্রস্ত এলাকাগুলোর বাসিন্দারা উদ্ধারকাজে ধীরগতির অভিযোগ করছেন। পরিবারগুলো বলছে তাদের যেসব সদস্য নিখোঁজ রয়েছে তাদেরকে ধ্বংসস্তূপের নিচ থেকে খুঁজে বের করতে প্রয়োজনীয় সাহায্য তারা পাচ্ছে না

অনেকের মতে, এরকম বিপর্যয় মোকাবেলার জন্য তুরস্ক সরকারের কোনো ধরনের প্রস্তুতি ছিলো না। তুরস্কের প্রধান বিরোধী দলের নেতা কেমাল কিলিচাদারুগলু বলছেন যে বিপর্যয়ের পরে উদ্ধারকার্যের গাফিলতির জন্যে যদি কাউকে দায়ী করতে হয় তাহলে তিনি স্বয়ং এরদোয়ান।

লেখক

Leave a comment
scroll to top