Close

দেশের ১৩ কোটি মোদী মামলা করতে পারেন না, উল্লিখিতরা পারেন

গুজরাট হাইকোর্ট বলেছে যে কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী জনগণের নির্বাচিত প্রতিনিধি, সে কারণেই বিবৃতি দেওয়ার সময় সতর্ক থাকতে হবে।

শনিবার, ২৯শে এপ্রিল, গুজরাট হাইকোর্ট বলেছে যে কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী জনগণের নির্বাচিত প্রতিনিধি, সে কারণেই বিবৃতি দেওয়ার সময় সতর্ক থাকতে হবে।

একটি নির্বাচনী সমাবেশে গান্ধী মন্তব্য করেছিলেন ‘সব চোরের মোদী পদবি’। এর প্রেক্ষিতে ম্যাজিস্ট্রেট আদালত ফৌজদারি মানহানির মামলায় তাঁকে দোষী সাব্যস্ত করে। গান্ধী স্থগিতাদেশ চেয়ে আবেদন করেছিলেন, যার শুনানির সময় বিচারপতি হেমন্ত প্রচ্ছক মৌখিকভাবে মন্তব্য করেন, “আসলে, বৃহত্তর ক্ষেত্রে এটা জনগণের প্রতি তাঁর কর্তব্য। তিনি জনগণের প্রতিনিধিত্ব করছেন। তাঁকে অবশ্যই সীমা লঙ্ঘন করলে চলবে না।”

গান্ধী পাল্টা আদালতকে বলেছিলেন যে তিনি হত্যা বা নৈতিক স্খলনের মতো কোনও গুরুতর বা জঘন্য অপরাধ করেননি।

“কেউ এটা বলতে পারে না যে আমার মামলাটি নৈতিক স্খলন বা গুরুতর অপরাধের মধ্যে পড়ে৷ বরং, আমার মামলাটি জামিনযোগ্য এবং বৃহত্তরভাবে সমাজবিরোধী নয়,” গান্ধীর পক্ষে বর্ষীয়ান আইনজীবি অভিষেক মনু সিংভির বয়ান৷

অভিযোগকারী পূর্ণেশ মোদীর অবস্থান নিয়েও প্রশ্ন তোলেন সিংভি।

“আমার আবেদন অবশ্যই গ্রাহ্য হওয়া উচিত কারণ আইন এই ধরনের অভিযোগের অনুমতি দেয় না। ১৩ কোটি মানুষের মোদী পদবিধারি প্রত্যেকে এসে অভিযোগ দায়ের করতে পারেন না। বক্তৃতায় যাঁদের নাম নেওয়া হয়েছে শুধু তাঁরাই পারেন,” সিংভি বলেন।

লেখক

Leave a comment
scroll to top