Close

ন্যূনতম মজুরি এবং মিড-ডে মিলের মান উন্নয়নের দাবিতে জেলা থেকে কলকাতায় আসছেন আম্মারা

মিডডে মিল কর্মীদের ন্যুনতম মজুরি, কাজের পরিবেশের উন্নতি, সুযোগ সুবিধা ছাড়াও শিশুদের জন্য প্রতিদিন ডিম সহ মিডডে মিলের মান উন্নয়নের দাবি জানিয়েছে আম্মা।

আগামী ৩০শে মে, মঙ্গলবার, রাজ্যের মিডডে মিল কর্মীরা, মিডডে মিল সহায়ক সমিতির (আম্মার) নেতৃত্বে শিয়ালদহে জমায়েতের ডাক দেয়। সকাল ১২টায় শিয়ালদহতে জমায়েত হবে। তারপর রামলীলা ময়দান থেকে রাসমণি অব্দি মহামিছিল চলবে, রাসমণিতে প্রতিবাদসভা অনুষ্ঠিত হবে। মুখ্যমন্ত্রীর কাছে ডেপুটেশন জমা দেওয়া হবে।

দেশের অন্যতম প্রকল্পগুলির মধ্যে একটি হল “মিডডেমিল”।১৯৯৫ সাল থেকে সারা ভারতে এই প্রকল্প চালু হয় সরকারি স্কুল গুলিতে শিক্ষার্থীদের জরুরি পুষ্টি সরবরাহের জন্য। এর আগে ১৯৮৩ সালে তামিলনাড়ুতে এই প্রকল্প চালু হয়। এরাজ্যে চালু হয় ২০০৬ থেকে। কিন্তু অন্যান্য রাজ্যের তুলনায় এই রাজ্যের মিড ডে মিলের কর্মীদের বেতন অত্যন্ত কম। 

তারা ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন যে, তামিলনাড়ু এবং কেরালার মিডডেমিল কর্মীদের বেতন, ন্যূনতম পেনশন দেওয়া হয়। মাসে ৯০০০ থেকে ১৬০০০ টাকা(তামিলনাড়ু) এবং ১০০০০ টাকা‌ (কেরালা) বেতন দেওয়া হয় কর্মীদের। কিন্ত পশ্চিমবঙ্গে মাসে ১৫০০ টাকা বরাদ্দ কর্মীদের জন্য। বেশকিছু জায়গায় একটি পদে একাধিক লোক কাজ করে তাই প্রত্যেকের মাসিক আয় অত্যন্ত কম। এছাড়া আলাদা করে কোনো সরকারি নিয়োগনীতিও বর্তমান নয়।

মিডডে মিল কর্মীদের ন্যুনতম মজুরি, কাজের পরিবেশের উন্নতি, সুযোগ সুবিধা ছাড়াও শিশুদের জন্য প্রতিদিন ডিম সহ মিডডে মিলের মান উন্নয়নের দাবি জানিয়েছে আম্মা।

লেখক

Leave a comment
scroll to top